1. admin@ekdeshi.com : Ekdeshi :
  2. editor@ekdeshi.com : Ek Deshi : Ek Deshi
পাঁচ বছরে এতটা শোচনীয় অবস্থা হয়নি টাইগারদের!

পাঁচ বছরে এতটা শোচনীয় অবস্থা হয়নি টাইগারদের!

  • সময় : শনিবার, ২০ মার্চ, ২০২১

পাঁচ বছরে এতটা শোচনীয় অবস্থা হয়নি টাইগারদের!

একবার দু‘বার নয়। পরিসংখ্যান বলছে, গত চার পাঁচ বছরে (২০১৬ সালের ডিসেম্বর থেকে) নিউজিল্যান্ডের মাটিতে ব্ল্যাক ক্যাপ্সদের বিপক্ষে এ নিয়ে চারবার ৮ উইকেটের ব্যবধানে হারলো বাংলাদেশ। ব্যবধানগত তারতম্য খুব বড় কিছু নয়। ৮ উইকেট কেন, অনেক বড় বড় দলও ওয়ানডেতে ১০ উইকেটে হারে।

কিন্তু তারও একটা ধরণ থাকে। পরিসংখ্যান পরিষ্কার সাক্ষী দিচ্ছে, বাংলাদেশ গত চার-পাঁচ বছরে নিউজিল্যান্ডের কাছে এর আগে যে তিনবার ৮ উইকেটে হেরেছে প্রতিবারই খেলা হয়েছিল নিউজিল্যান্ডের মাটিতে।

এর মধ্যে ২০১৬ সালে নেলসনে সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ম্যাচে ৯ উইকেটে ২৩৬ রান করে ৮ উইকেটে হেরেছিল টাইগাররা। দুই ওপেনার তামিম (৫৯) ও ইমরুল (৪৪) প্রথম উইকেটে ১০২ রান তুলে দিলেও নুরুল হাসান সোহান (৪৪) ছাড়া পরের ব্যাটসম্যানরা রান করতে না পারায় ২৩০’র ঘরেই শেষ হয় ইনিংস।

এরপর ২০১৯ সালে নিউজিল্যান্ডে গিয়ে তিন ম্যাচের সিরিজ খেলেছে মাশরাফির দল। এর মধ্যে নেপিয়ার ও ক্রাইস্টচার্চে ৮ উইকেটে এবং ডানেডিনে ৮৮ রানে হার মানে টাইগাররা। বব্যধান ৮ উইকেটের হলেও ওই তিন ম্যাচের প্রথমটিতে ২৩২ রান করেছিল বাংলাদেশ। মোহাম্মদ মিঠুনের ব্যাট থেকে এসেছিল সর্বোচ্চ ৬২। অলরাউন্ডার সাইফউদ্দীন করেছিলেন ৪১। এছাড়া সৌম্য সরকার ৩০ ও মিরাজের সংগ্রহ ছিল ২৬।

ক্রাইস্টচার্চে পরের ম্যাচে ৮ উইকেটে হারলেও মাশরাফির দলের স্কোর গিয়ে ঠেকেছিল ২২৬ পর্যন্ত। টপ স্কোরার ছিলেন মোহাম্মদ মিঠুন, ৫৭। আর সাব্বির রহমানের সংগ্রহ ছিল ৪৩।

ডানেডিনে ব্ল্যাক ক্যাপ্সদের ৬ উইকেটে ৩৩০ রানের পাহাড় সমান স্কোরের জবাবে ৮৮ রানে হারের ম্যাচে টাইগারদের স্কোর ছিল ২৪২। সাব্বির রহমান রুম্মন সেঞ্চুরি করেছিলেন (১০২)। আর সাইফউদ্দীন ৪৪ ও মিরাজ ৩৭ রানের আরও দুটি মাঝারী ইনিংস খেলেছিলেন।

শেয়ার করুন:

আরোও খবর...
© All rights reserved ©Ekdeshi.com